গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় জেনে নিন

Spread the love

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়- অনলাইন থেকে ইনকামের অনেকগুলো মাধ্যম রয়েছে। এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে সহজ এবং গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স। গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আমরা কম-বেশী অনেকেই শুনেছি। শুনেছি এর মাধ্যমে নাকি অনেক টাকা ইনকাম করা যায়। কিন্তু কিভাবে করবো বুঝতে পারছি না। এরকম সমস্যা অনেকেরই রয়েছে, যারা এডসেন্স থেকে ইনকাম করা যায় শুনেছেন, কিন্তু করতে পারছেন না। তবে আমাদের দেশের অনেকেই ইতিমধ্যে ইনকাম করা শুরু করে দিয়েছেন, অনেকেই চেষ্টা করছেন, আবার কেউ কেউ শুরু করার চিন্তা করছেন।

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় | গুগল এডসেন্স এর নিয়ম

আমাদের দেশের অধিকাংশই ইংরেজিতে দূর্বল। যে কারণে আমরা অনেক পিছিয়ে রয়েছি। বিশেষ করে অনলাইন থেকে ইনকাম করার ক্ষেত্রে আমরা অনেক পিছিয়ে রয়েছি। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত, এই সেক্টরে আমাদের চেয়ে অনেক এগিয়ে রয়েছে। কেননা তারা ইংরেজিতে আমাদের তুলনায় অনেক ষ্ট্রং। ইংরেজি ভাষা সারা বিশ্বে প্রভাব বিস্তার করে আছে। এ ভাষায় দক্ষতা না থাকায় আমরা বায়ারের সাথে ঠিকমত কমিউনিকেশন করতে পারি না, ইংরেজিতে কন্টেন্ট লিখতে পারি না ইত্যাদি। ইংরেজিতে কন্টেন্ট লিখতে পারলে হিউজ পরিমান টাকা ইনকাম করার সম্ভাবনা রয়েছে। দেশে এবং দেশের বাইরে কন্টেন্ট রাইটারের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। আর কিছু না হোক, অন্তত ব্লগে কন্টেন্ট লিখে বা প্রডাক্ট রিভিউ লিখে প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয়-

যাই হোক, দুশ্চিন্তা করার কিছু নাই। ইংরেজি ভাষায় লিখতে পারি না তো কি হয়েছে, বাংলা ভাষায় তো লিখতে পারি! আমাদের দেশে অনলাইন থেকে যারা ইনকাম করতে চায়, তাদের জন্য একটি সু-খবর হলো- গুগল বেশ কয়েক বছর ধরে বাংলা ভাষাভাষিদের জন্য ইনকাম করার বিশাল সুযোগ করে দিয়েছে। অর্থাৎ আপনি যদি বাংলা ভাষায় ভালো লেখালেখি করতে পারেন তাহলে ব্লগসাইটে কন্টেন্ট লিখে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় সম্পর্কে আমাদের অন্য একটি পোষ্টে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হয়েছে। আপনারা চাইলে পোষ্টটি পড়ে আসতে পারেন।

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়-

Google AdSense হলো অনলাইন ভিত্তিক বিজ্ঞাপন প্রচারের সবচেয়ে বড় সংস্থা। এর মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করা সম্ভব। এজন্য অনেকেই গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে চায়। তারই ধারাবাহিকতায়- প্রথমে তারা একটি ওয়েবসাইট তৈরী করে, এরপর বিভিন্ন বিষয়ে তাদের ওয়েবসাইটে আর্টিকেল বা কন্টেন্ট পাবলিশ করে এবং কিছুদিন পর এডসেন্সের জন্য আবেদন করে থাকেন। কিন্তু গুগল অনেকের এডসেন্সের আবেদন রিজেক্ট করে দেয়।

কেননা, নতুনদের অনেকেই গুগল এডসেন্সের নীতিমালা সম্পর্কে অবগত নন। নিয়ম-কানুন না জেনেই তারা আবেদন করে থাকেন। যে কারণে অধিকাংশ ব্লগারের গুগল এডসেন্সের আবেদন রিজেক্ট হয়ে যায়। অনেকেই বার বার চেষ্টা করেও সফল হতে পারেন না। গুগল প্রতিবারই রিজেক্ট করে দেয়। এভাবে কয়েকবার রিজেক্ট হওয়ার পর হতাশ হয়ে অনেকেই হাল ছেড়ে দিয়েছেন বা দিচ্ছেন। কিছুদিন শুধু শুধু পরিশ্রম করা হয় এবং সেই সাথে টাকাও নষ্ট হয়।

তাহলে করণীয় কি? আমরা কি গুগল এডসেন্সের অনুমোদন পাব না? আমরা কিভাবে গুগল এডসেন্সের অনুমোদন পেতে পারি? কি কারণে গুগল আমাদেরকে এডসেন্সের জন্য অনুমোদন দিচ্ছে না? প্রশ্নগুলো মনে মনে অনেকেই ভেবে থাকেন।

গুগল এডসেন্স এর নিয়ম-

গুগল এডসেন্স না পাওয়ার অনেকগুলো কারণ রয়েছে। বর্তমানে এডসেন্সের আবেদন রিজেক্ট করার ক্ষেত্রে একটি বড় ধরণের সমস্যা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। তাহলো গুগল যাদেরক রিজেক্ট করে দিচ্ছে তাদের বেশিরভাগই বুঝতে পারছে না তাদেরকে কি কারণে রিজেক্ট করা হয়েছে। অল্প কিছু ব্লগারকে এভাবে ম্যাসেজ দিয়ে থাকে- তোমার পাবলিশ করা কন্টেন্টগুলো Low Value কন্টেন্ট এজন্য আমরা তোমাকে অনুমোদন দিতে পারছি না। তুমি তোমার কন্টেন্টগুলো ডেভেলপ করে আবার আবেদন করো। আমরা পুনরায় যাচাই-বাছাই করার পর ভেবে দেখবো তোমার সাইটে এডসেন্সের জন্য অনুমোদন দেওয়া যাবে কিনা। এ ম্যাসেজ থেকে স্পষ্টভাবে বুঝা যায়, কেন তাকে অনুমোদন দেওয়া হয়নি।

কিন্তু বর্তমানে বেশিরভাগ ব্লগারকেই এভাবে ম্যাসেজ দিচ্ছে- তোমার কন্টেন্টগুলো আমাদের মানদন্ড অনুযায়ী হয়নি। আমাদের মানদন্ড অনুযায়ী তোমার আর্টিকেলগুলোকে ঠিক করে পুনরায় আবেদন করো। তারপর আমরা যাচাই করে সিদ্ধান্ত নেব তোমাকে অনুমোদন দেওয়া যাবে কিনা। তবে তোমার আবেদন কি কারণে রিজেক্ট করা হয়েছে আমরা তা বলতে বাধ্য নই।

এখন বলুন, এ ধরণের ম্যাসেজ থেকে আপনি কি বুঝবেন। এ ধরণের ম্যাসেজ না বুঝার কারণে অনেকেই পুনরায় আবেদন করতে পারেন না। ফলে পরিশ্রমগুলোই বৃথা যায়। আজ আমরা গুগলের মানদন্ডগুলো কি কি সেগুলো জানার চেষ্টা করবো।

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়-

গুগল এডসেন্স পাওয়ার ক্ষেত্রে গুগলের নিজস্ব কিছু নীতিমালা রয়েছে। Google AdSense এর জন্য আবেদন করার পূর্বে অবশ্যই গুগলের সেই নীতিমালাগুলো অনুসরণ করেই আবেদন করা উচিত। তাহলে এডসেন্সের অনুমোদন পাওয়াটা অনেক সহজ হয়ে যায়।

এজন্য গুগলের নীতিমালাগুলো প্রথমেই ভালভাবে জেনে নেওয়া উচিত। এছাড়া বারবার আবেদন করেও কোন লাভ হবে না।

এডসেন্স পাওয়ার ক্ষেত্রে গুগলের নীতিমালাগুলো কি কি এবং গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় গুলো কি কি সে বিষয়ে আজ আমরা বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করবো। তো চলুন শুরু করা যাক।

এডসেন্সের অনুমোদন পেতে হলে আবেদন করার পূর্বে এবং আবেদন করার পড়ে কিছু করণীয় রয়েছে সেগুলো সকলের জানা উচিত। অনেকেই গুগলের নিয়মনীতি না জেনে বা না বুঝেই এডসেন্সের জন্য আবেদন করে থাকেন। যে কারণে তাদেরকে বারবার রিজেক্ট করা হয়।

নিচের টিপসগুলো অনুসরণ করে এডসেন্সের জন্য আবেদন করলে অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

এডসেন্স এর জন্য আবেদন করার পূর্বে করণীয় কি?

এডসেন্স এর জন্য গুগলের কাছে আবেদন করার পূর্বে বেশ কিছু করণীয় রয়েছে। যেগুলো এডসেন্সের জন্য অনুমোদন পেতে সাহায্য করে। করণীয়গুলো নিচে তুলে ধরা হলো-

১. কাষ্টম ডোমেইন ক্রয় | গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়-

সর্বপ্রথম যে কাজটি করতে হবে তাহলো একটি কাষ্টম ডোমেইন কিনতে হবে। অনেকেই সাব-ডোমেইনে (Blogspot.com) কন্টেন্ট পাবলিশ করে গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করে থাকেন। এজন্য গুগল তাদেরকে রিজেক্ট করে দেয়। তবে একটা সময় ছিল যখন সাব-ডোমেইন দিয়েও খুব সহজে অনুমোদন পাওয়া যেতো। কিন্তু বর্তমানে বিষয়টি খুবই কঠিন হয়ে পড়েছে।

বিধায়, এডসেন্সের অনুমোদন পাওয়ার জন্য সর্বপ্রথম একটি ভালো মানের কাষ্টম ডোমেইন ক্রয় করা আবশ্যক।

২. ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইট ডিজাইন | গুগল এডসেন্স এর নিয়ম

কাষ্টম ডোমেইন ক্রয় করার সময় একইসাথে হোস্টিংও ক্রয় করুন। এবার দুটিকে কাষ্টমাইজ করুন। কাষ্টমাইজ করা হয়ে গেলে ওয়েবসাইট ডিজাইন করুন। ওয়েবসাইটে যে থিমটি ইনষ্টল করবেন তা যেন অবশ্যই দেখতে সুন্দর হয় এবং ইউজার ফ্রেন্ডলী হয়।

যাতে করে ভিজিটররা যে কোন ধরনের ডিভাইস থেকে আপনার আর্টিকেলগুলোকে খুব সহজেই পড়তে পারেন।

৩. ফাস্ট, নীট এন্ড ক্লিন ওয়েবসাইট | গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়-

আপনার সাইটের লোডিং স্পিড যেন ভালো হয়, সে বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। কেননা, স্লো স্পিডের সাইটগুলোতে ভিজিটর আসতে চায় না। তারা খুবই বিরক্তবোধ করে। আর ভিজিটর না থাকলে এডসেন্স পাওয়া অসম্ভব হয়ে পড়ে। সেই সাথে সাইটটি যেন নীট এন্ড ক্লিন থাকে। ভিজিটররা যেন আপনার সাইট ভিজিট করে আনন্দ পায়।

সাইটের থিমও যেন খুবই সিম্পল এবং আউট লুকিং সুন্দর হয়। সাইট দেখেতে হিজিবিজি হলে ভিজিটররা স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে না।

৪. ব্লগসাইটে ভালো মানের কন্টেন্ট বা আর্টিকেল লেখা | গুগল এডসেন্স এর নিয়ম-

ওয়েবসাইটের প্রাণ হলো কন্টেন্ট বা আর্টিকেল। কন্টেন্ট ছাড়া ব্লগসাইটের কোন মূল্য নেই। কেননা, কন্টেন্ট ছাড়া ভিজিটররা আপনার সাইটে আসবে না। গুগল এডসেন্স এর অনুমোদন এবং এডসেন্সের মাধ্যমে ইনকামের পূর্বশর্ত হলো সাইটে প্রচুর পরিমানে ইউনিক ভিজিটর আসা। ভিজিটর না আসলে আপনার ইনকাম হবে কি করে?

এজন্য ভিজিটর পেতে হলে আপনার ওয়েবসাইটে প্রতিনিয়ত ভালমানের কন্টেন্ট পাবলিশ করতে হবে। গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করার পূর্বে আপনার সাইটে ভালো মানের কমপক্ষে ২০-২৫ টি ইউনিক কন্টেন্ট থাকা উচিত। এছাড়া আপনার ওয়েবসাইটে যতগুলো ক্যাটাগরি থাকবে, প্রতিটি ক্যাটাগরিতে অন্তত পাঁচটি করে পোষ্ট থাকা উচিত।

এর ফলে আপনার সাইটের জন্য এডসেন্স পাওয়াটা সহজ হয়ে যাবে।

৫. এসইও ফ্রেন্ডলী পোষ্ট তৈরী করা | গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়-

আপনার সাইটের প্রতিটি পোষ্টই এসইও ফ্রেন্ডলী হওয়া উচিত। যা আপনাকে দ্রুত এডসেন্স পেতে সাহায্য করবে। গুগলের রোবটিক সিস্টেম Robot.txt এর মাধ্যমে আপনার সাইটকে সম্পূর্ণভাবে মনিটরিং করে দেখে যে, আপনার সাইটে কোন ত্রুটি আছে কিনা। আপনার সাইটের পোস্টগুলো এসইও ফ্রেন্ডলী না হলে এডসেন্স পাওয়াটা খুবই কঠিন হয়ে যায়।

এজন্য প্রতিটি পোষ্টকে খুব ভালভাবে অনপেজ এসইও করা উচিত।

৬. পোষ্টগুলোতে পর্যাপ্ত পরিমানে কন্টেন্ট থাকা | গুগল এডসেন্স এর নিয়ম

আপনার সাইটে পাবলিশ করা প্রতিটি পোষ্টেই পর্যাপ্ত পরিমানে কন্টেন্ট থাকা উচিত। সাইটে শুধুমাত্র ২০-২৫ টি পোষ্ট থাকলেই হবে না, সেগুলো ইউনিক, ভালো মানের এবং পর্যাপ্ত পরিমানে হতে হবে। এডসেন্স পাওয়ার জন্য প্রতিটি পোষ্টে কমপক্ষে ৫০০-৬০০ শব্দের ভালো মানের কন্টেন্ট থাকা উচিত। গুগল বট আপনার সাইটকে মনিটরিং করে দেখবে পোষ্টগুলোতে কি পরিমান শব্দ রয়েছে। এজন্য এডসেন্স পাওয়ার পূর্বে আপনার প্রতিটি পোষ্টে যেন কমপক্ষে ৫০০-৬০০ শব্দ লেখা থাকে এটা নিশ্চিত করতে হবে।

তবে এডসেন্সের অনুমোদন পাওয়ার পর কোন পোষ্টে উল্লেখিত শব্দের চেয়ে কম শব্দ থাকলেও সমস্যা নেই।

৭. ডোমেইনের পরিণত বয়স | গুগল এডসেন্স থেকে আয়-

সবকিছুরই একটা পরিণত বয়স থাকে। এডসেন্স পাওয়ার ক্ষেত্রে ডোমেইনেরও একটা পরিণত বয়স রয়েছে। ডোমেইনের বয়স কমপক্ষে ২-৩ মাস হওয়ার পর এডসেন্সের জন্য আবেদন করা উচিত। তবে ডোমেইনের বয়স ৬ মাস হওয়ার পর অবেদন করলে সবচেয়ে ভালো হয়। এডসেন্স পাওয়ার ক্ষেত্রে ডোমেইনের বয়স খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

অনেকে নতুন ডোমেইন কেনার পর সাইট তৈরী করে এবং তাতে কিছু কন্টেন্ট পাবলিশ করার পর, ডোমেইনের পরিণত বয়স হওয়ার পূর্বেই এডসেন্সের জন্য আবেদন করেন। এটা করা একদম উচিত নয়।

কেননা, ডোমেইনের পরিণত বয়স না হলে এডসেন্স পাওয়াটা কঠিন হয়ে পড়ে।

৮. অন্য বিজ্ঞাপন না থাকা | গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়-

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় গুলোর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ একটি উপায় হলো- গুগল এডসেন্স পাওয়ার পূর্বে আপনার সাইটে অন্য কোন বিজ্ঞাপন কোন অবস্থাতেই থাকা যাবে না। কেননা, গুগল এটা একদমই পছন্দ করে না যে, তাদের বিজ্ঞাপনের পাশাপাশি অন্য কোন বিজ্ঞাপন প্রচার করা হোক। যদি আপনার সাইটে এডসেন্স পাওয়ার পূর্বে অন্য কোন বিজ্ঞাপন থাকে তাহলে তারা আপনাকে এডসেন্সের অনুমোদন দিবে না। এজন্য এটা পরিহার করতে হবে।

তবে এডসেন্স অনুমোদন পাওয়ার পর আপনার সাইটে অন্যান্য বিজ্ঞাপন ব্যবহার করতে পারবেন।

৯. গুগলে সার্চ করার মাধ্যমে ভিজিটর আসা | গুগল এডসেন্স

গুগলে সার্চ করার মাধ্যমে আপনার সাইটে ভিজিটর আসলে এডসেন্স পাওয়াটা খুবই সহজ হয়ে যায়। গুগলে সার্চ করে সাইটে ভিজিটর আসলে গুগল এটাকে খুবই পছন্দ করে। গুগলে সার্চের মাধ্যমে সাইটে ভিজিটর পেতে হলে আপনার সাইট এবং পোষ্টগুলোকে ভালোভাবে এসইও করতে হবে। সাইটে ভিজিটর না থাকলে এডসেন্স পাওয়া অসম্ভব হয়ে পড়ে।

সাইটে প্রতিদিন ২০০-৩০০ ইউনিক ভিজিটর থাকলে এডসেন্স এর অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

১০. গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পেজ তৈরী করা | গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়-

গুগল এডসেন্সের নীতিমালা অনুযায়ী ব্লগসাইটে অবশ্যই কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পেজ তৈরী করা উচিত। যেমন-

ক) About Us
খ) Privacy Policy
গ) Contact Us
ঘ) Disclaimer

এগুলো আপনার সাইটে থাকলে গুগল আপনার সম্পর্কে, আপনার সাথে যোগাযোগের ঠিকানা, আপনার সাইটের গোপনীয়তা নীতি সম্পর্কে খুব সহজেই জানতে পারবে। এজন্য এই পেজগুলো সাইটে রাখা আবশ্যক।

১১. কপিরাইট ইমেজ ব্যবহার না করা | গুগল এডসেন্স-

গুগল সবসময় ইউনিক আর্টিকেল বা ইমেজ পছন্দ করে। কপিরাইট কন্টেন্ট বা ইমেজ ব্যবহার করাকে গুগল একদমই পছন্দ করে না। গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য আপনার সাইটে অবশ্যই ইউনিক কন্টেন্ট এবং কপিরাইট ছাড়া ইমেজ ব্যবহার করতে হবে। গুগল, ফেসবুক অথবা অন্য কারো ওয়েবসাইট থেকে কপি করা ইমেজ ব্যবহার করলে এডসেন্সের অনুমোদন পাবেন না।
তবে কিছু কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে, যেগুলো থেকে ইমেজ ব্যবহার করলে কপিরাইট হবে না।

এমন কিছু ওয়েবসাইটের নাম নিচে দেওয়া হলো। যেখান থেকে ইমেজ ডাউনলোড করে আপনি আপনার সাইটে ব্যবহার করতে পারেন।

ক) উইকিমিডিয়া
খ) ফ্লিকার
গ) মাইক্রোসফট
ঘ) এসএক্সইউ
ঙ) ইমেজ আফটার
চ) স্টলভল্ট
ছ) গেটদি ইমেজ
জ) এভরি স্টক ফটো
ঝ) ক্রিয়েটিভ কমন্স

১২. গুগল এডসেন্স নীতিমালা সম্পর্কে জানা এবং মেনে চলা | গুগল এডসেন্স একাউন্ট-

গুগল এডসেন্স অনুমোদন পাওয়ার জন্য এবং এর মাধ্যমে ইনকাম করার জন্য গুগল এডসেন্স নীতিমালা সম্পর্কে ভালোভাবে জানার চেষ্টা করা এবং সেগুলো ১০০% মেনে চলা উচিত। অন্যথায় গুগল আপনাকে এডসেন্সের জন্য অনুমোদন দিবে না। অনুমোদন পাওয়ার পরও যদি আপনি তাদের কোন নীতি ভঙ্গ করেন, তবে গুগল আপনার অনুমোদনকে যে কোন সময় বন্ধ করে দিতে পারে।

এজন্য সর্বদা গুগল এডসেন্স নীতিমালা ১০০% মেনে চলা উচিত।

১৩. অপরাধমূলক বা আইন বিরোধী কনটেন্ট না লেখা | গুগল এডসেন্স-

গুগল এডসেন্স এর কনটেন্ট Policy অনুযায়ী অপরাধমূলক বা আইন বিরোধী কনটেন্ট লেখা নিষেধ। যে কন্টেন্টের মাধ্যমে মানুষ বিভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে এ ধরণের কন্টেন্ট লিখা সাইটকে গুগল কখনই এডসেন্সের অনুমোদন দেয় না।

এ ধরণের ওয়েবসাইটে সাধারণত ভিজিটরের পরিমান বেশী থাকে। ভিজিটরের সংখ্যা বেশী থাকলেও গুগল তাদেরকে এডসেন্সের অনুমোদন দেয় না। যেমন-

ক) বিপজ্জনক কন্টেন্ট
খ) প্রতারণামূলক কাজকর্ম
গ) হয়রানিমূলক কন্টেন্ট
ঘ) ঘৃণাপূর্ণ কন্টেন্ট
ঙ) কারচুপি করা কন্টেন্ট
চ) সন্ত্রাসবাদী কন্টেন্ট
ছ) যৌনতাপূর্ণ, পর্ণগ্রাফি বা Adult কনটেন্ট
জ) হিংসা ও রক্তপাত সম্পর্কিত কন্টেন্ট
ঝ) অশ্লীল ও অমার্জিত ভাষায় কন্টেন্ট
ঞ) হ্যাকিং বা ক্রাকিং টিপস।
ট) মাদক জাতীয় দ্রব্যের অথবা Alcohol এর প্রচারণামূলক কন্টেন্ট
ঠ)) পরস্পর বিরোধী কনটেন্ট।
ড) মারাত্মক অস্ত্রের বিজ্ঞাপনমূলক কন্টেন্ট

১৪. আপনার বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হতে হবে | গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় গুলোর মধ্যে আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ উপায় হলো এডসেন্স আবেদনকারীর বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হওয়া। কেননা, গুগলের নীতিমালায় স্পষ্টভাবে উল্লেখ করা হয়েছে যাদের বয়স ১৮ বছরের নিচে তারা গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারবে না। এডসেন্সের জন্য আবেদনের পূর্বে অবশ্যই গুগলকে নিশ্চিত করতে হবে যে আপনার বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হয়েছে। এছাড়া আপনার আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে না।

তবে আপনার বয়স যদি ১৮ বছরের কম হয়ে থাকে, তাহলে আপনি আপনার বাবা-মা’র তথ্য ব্যবহার করে এডসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স না পাওয়ার কিছু কারণ-

ক) সাইটে ভালো মানের ইউনিক কন্টেন্ট এবং পর্যাপ্ত পরিমানে কন্টেন্ট না থাকা।
খ) ইউনিক ভিজিটর না থাকা।
গ) গুগল এডসেন্সের নীতিমালা অনুসরণ না করা।
ঘ) কন্টেন্টে পর্যাপ্ত পরিমানে শব্দ না থাকা।
ঙ) Low Value কন্টেন্ট থাকা।
চ) পোষ্টগুলো এসইও ফ্রেন্ডলী না হওয়া।
ছ) ডোমেইনের পরিণত বয়স না হওয়া।
জ) এডসেন্স পাওয়ার পূর্বে অন্য বিজ্ঞাপন সাইটে থাকা।
ঝ) ভাল মানের ডোমেইন না থাকা।
ঞ) সাইটে কপিরাইট কন্টেন্ট বা ইমেজ ব্যবহার করা।

সাইটে ভিজিটর না আসা বা কমে যাওয়ার কারণসমূহ-

আপনার সাইটে পর্যাপ্ত পরিমানে কন্টেন্ট রয়েছে তবুও ভিজিটর আসছে না অথবা একটা সময় অনেক ভিজিটর আসতো কিন্তু আস্তে আস্তে তা একেবারেই কমে যাচ্ছে। এর কারণ কি? বিভিন্ন কারণে এরকম হতে পারে। নিচে কিছু কারণ উল্লেখ করা হলো-

ভিজিটর না আসার কিছু কারণ-

ক) আপনার সাইটে পর্যাপ্ত পরিমানে কন্টেন্ট না থাকা।
খ) ভালো মানের ইউনিক কন্টেন্ট না থাকা।
গ) তথ্যবহুল বা ভিজিটরদের প্রয়োজনীয় কন্টেন্ট না থাকা।
ঘ) পোষ্টগুলো এসইও ফ্রেন্ডলী না হওয়া। পোষ্টগুলো এসইও ফ্রেন্ডলী না হলে ভিজিটর আপনার সাইট সম্পর্কে জানবে কি করে অথবা পোষ্টগুলো ভিজিটরদের কাছে পৌঁছাবে কি করে।

সাইটের ভিজিটর কমে যাওয়ার কারণসমূহ-

সাইটে ভিজিটর কমে যাওয়ার অনেকগুলো কারণ রয়েছে। বিভিন্ন কারণে আপনার সাইটের ভিজিটর কমে যেতে পারে। নিম্নে কিছু কারন তুলে ধরা হলো-

ক) নিয়মিত কন্টেন্ট পাবলিশ না করা-

সাইটে ভিজিটর ধরে রাখতে হলে প্রতিনিয়ত তথ্যবহুল এবং ইউনিক কন্টেন্ট পাবলিশ করতে হবে। ভিজিটররা হয়তো মাঝে মাঝেই আপনার সাইট ভিজিট করে, কিন্তু নতুন কোন কন্টেন্ট না পাওয়ায় তারা বিরক্ত হয়ে চলে যায়।
এভাবে আস্তে আস্তে ভিজিটর কমতে থাকে।

খ) গুগল আপডেট-

গুগল মাঝে মাঝেই আপডেট নিয়ে আসে। গুগলের আপডেটের কারণে অনেক ওয়েবসাইট পড়ে যায়। এ কারণেও আপনার সাইটের ভিজিটর কমে যেতে পারে।

এজন্য গুগল আপডেটের সাথে সবসময় নিজের সাইটটিকেও আপডেট রাখা উচিত।

গ) গুগলের ম্যানুয়াল প্যানাল্টি-

সাইটের ভিজিটর কমে যাওয়ার আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হলো গুগল কর্তৃক প্যানাল্টিতে আক্রান্ত হওয়া।

ঘ) ট্রেন্ডিং কন্টেন্ট লেখা-

অনেকেই ট্রেন্ডিং টপিক নিয়ে আর্টিকেল লিখে থাকেন। ফলে তাদের সাইটের ভিজিটর আস্তে আস্তে কমে যায়। কারণ ট্রেন্ডিং টপিকে লেখা কন্টেন্টগুলো বছরের নির্দিষ্ট কিছু সময় চলে।

এজন্য শুধুমাত্র ট্রেন্ডিং কিওয়ার্ড নির্বাচন না করে সারা বছর মানুষের প্রয়োজন এমন কিছু কিওয়ার্ড নিয়ে কন্টেন্ট লেখা উচিত।

ঙ) খারাপ ব্যাকলিংক থাকা-

ব্যাকলিংক অফ পেজ এসইও’র একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যদি আপনার সাইটে কোন খারাপ ব্যাকলিংক থেকে থাকে তাহলে সেগুলো দ্রুত রিমুভ করে দিন। অপ্রয়োজনীয় ব্যাকলিংকগুলো গুগল সার্চ কন্সোলে গিয়ে Disavow করে দিন।
আপনার সাইটে কোন অপ্রয়োজনীয় বা খারাপ ব্যাকলিংক আছে কিনা তা মাঝে মাঝে চেক করে দেখুন।

গুগল এডসেন্স এর নিয়ম | গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়-

চ) লোডিং স্পিড কম থাকা

সাইটের লোডিং স্পিড ফাস্ট না হলে ভিজিটররা আপনার সাইটে আসতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবে না। আপনার সাইটে ভিজিটর আসার সময় যদি দেখে সাইটের লোডিং স্পিডের একেবারে বাজে অবস্থা তাহলে ভিজিটররা স্কিপ করে চলে যায়।

এভাবে আস্তে আস্তে ভিজিটর কমতে থাকে।

ছ) সাইটম্যাপ না থাকা-

প্রতিটি ওয়েবসাইটে সাইটম্যাপ থাকাটা আবশ্যক। যে কোন সাইটের পোষ্টগুলো গুগল সার্চ ইঞ্জিনে ইনডেক্স করার ক্ষেত্রে সাইটম্যাপের গুরুত্ব অপরিসীম।

এজন্য আপনার সাইটে সাইটম্যাপ এ্যাড করা আছে কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত হতে হবে এবং সাইটম্যাপে আপনার পোষ্টগুলোর লিংক থাকতে হবে।

জ) পার্মালিংক পরিবর্তন করা-

আপনার পোষ্টগুলোর এসইও’র ক্ষেত্রে পার্মালিংক খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। আপনার সাইটের পার্মালিংক পরিবর্তন করলে পূর্বের পোষ্টগুলোর লিংক গুগল নতুন করে ইনডেক্সিং করে। ফলে পূর্বের পোষ্টলিংকগুলো আর সচল থাকবে না।

এ কারণে আপনার সাইটের ভিজিটর কমে যাবে।

ঝ) ভিজিটরদের চাহিদা অনুযায়ী কন্টেন্ট না থাকা-

ভিজিটররা আপনার সাইটে প্রবেশ করে একটা উদ্দেশ্য নিয়ে বা সেবা গ্রহণের জন্য। কিন্তু আপনার সাইটে প্রবেশ করে যদি তার কাঙ্খিত সেবা না পায় তাহলে সে সময় নষ্ট না করে আপনার সাইট থেকে দ্রুত বের হয়ে যায়। অর্থাৎ কিওয়ার্ড এর সাথে আপনার কন্টেন্টের ভেতরের লেখার মিল না থাকলে ভিজিটরের চাহিদা পূরণ হয় না।

এজন্য আপনার সাইটের ভিজিটর আস্তে আস্তে কমে যায়।

শেষকথা- গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় শিরোনামের এই আর্টিকেলটিতে যে টিপস্গুলো বর্ণনা করা হয়েছে, এগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে যদি কেউ গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করে, আশা করছি তার আবেদন গুগলের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে। অর্থাৎ উল্লেখিত পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করে এডসেন্সের জন্য আবেদন করলে নিশ্চিতভাবে এডসেন্সের অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে। বিধায় তাদেরকে আর্টির্কেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ার জন্য অনুরোধ করা হলো যাদের আবেদন বারবার রিজেক্ট করা হয়েছে অথবা যারা নতুন করে এডসেন্সের জন্য আবেদন করতে চান।

73 thoughts on “গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় জেনে নিন”

  1. অনলাইন থেকে ইনকামের সবচেয়ে সহজ এবং গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স।গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আমরা কম-বেশী অনেকেই শুনে থাকলেও এর থেকে ইনকাম করার উপায় আমরা বুঝি না।এই আর্টিকেলটিতে যে টিপস্গুলো বর্ণনা করা হয়েছে, এগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে যদি কেউ গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করে, তাহলে আশা করা যায় তার আবেদন গুগলের কাছে গ্রহণযোগ্যতা হবে।

    Reply
  2. লেখক কে ধন্যবাদ জানাই এত সুন্দর করে সহজ ভাষায় গুগলি এডসেন্স দিয়ে অনলাইন এ টাকা আয় করার উপায় বর্ণনা করেছেন ।

    Reply
  3. অনলাইন থেকে ইনকামের অনেকগুলো মাধ্যম রয়েছে। যার মধ্যে সবচেয়ে সহজ এবং গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স।উক্ত কন্টেন্টে গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকামের উপায়,গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।উক্ত টিপসগুলো যদি অনুসরণ করা যায় তাহলে গুগল এডসেন্স খুব সহজেই পাওয়া যাবে।

    Reply
  4. গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আমরা কম-বেশী অনেকেই শুনে থাকলেও এর থেকে ইনকাম করার উপায় আমরা বুঝি না।এই আর্টিকেলটিতে যে টিপস্গুলো বর্ণনা করা হয়েছে, এগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে যদি কেউ গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করে, তাহলে আশা করা যায় তার আবেদন গুগলের কাছে গ্রহণযোগ্যতা হবে। লেখক কে ধন্যবাদ সুন্দরভাবে উপস্থাপন করার জন্য।

    Reply
  5. অনলাইনে থেকে ইনকাম এখন খুবই জনপ্রিয় একটি বিষয়। সবাই চায় ঘরে বসে কাজ করে ইনকাম করতে‌। অনলাইন থেকে ইনকামের অনেকগুলো জনপ্রিয় মাধ্যম রয়েছে। তার মধ্যে সবচেয়ে সহজ এবং গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স। এই কন্টেন্ট এর মাধ্যমে গুগল এডসেন্স এর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দিক গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে যা আমাদের জন্য খুবই উপকারী একটি বিষয়। লেখককে ধন্যবাদ এতো সুন্দর করে প্রতিটা বিষয় ভেঙে ভেঙে স্পষ্ট করে বুঝিয়ে উপস্থাপন করার জন্য।

    Reply
  6. গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আমরা কম-বেশী অনেকেই শুনে থাকলেও এর থেকে ইনকাম করার উপায় আমরা বুঝি না।এই আর্টিকেলটিতে যে টিপস্গুলো বর্ণনা করা হয়েছে, এগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে যদি কেউ গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করে, তাহলে আশা করা যায় তার আবেদন গুগলের কাছে গ্রহণযোগ্যতা হবে। লেখক কে ধন্যবাদ সুন্দরভাবে উপস্থাপন করার জন্য।

    Reply
  7. এই আর্টিকেলটি গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় ও নিয়ম নিয়ে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করেছে। এতে কাস্টম ডোমেইন ক্রয়, ভালো মানের কন্টেন্ট তৈরি, এসইও ফ্রেন্ডলী পোস্ট, এবং ওয়েবসাইট ডিজাইন সম্পর্কে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া, গুগল এডসেন্সের নীতিমালা মানার গুরুত্ব, ভিজিটরদের জন্য প্রয়োজনীয় পেজ তৈরি করা, এবং কপিরাইট ইমেজ ব্যবহার না করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। নিয়মগুলো অনুসরণ করলে গুগল এডসেন্স পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বৃদ্ধি পায়। ধন্যবাদ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো বিস্তারিতভাবে উপস্থাপন করার জন্য।

    Reply
  8. গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আমরা কমবেশি জেনে থাকলেও। গুগল এডসেন্স এর কাজ কিভাবে করতে হয় তা আমরা জানি না।এ কনটেন্টিতে সুন্দর করে ফুটিয়ে তুলেছেন গুরুত্বপূর্ণ কৌশল গুগল এডসেন্স কাজ সহজেই পেতে খুবই প্রয়োজনীয় কনটেন্টি ভালো করে পড়া। ধন্যবাদ লেখক কে এত সুন্দর কনটেন্টই উপস্থাপন করার জন্য।

    Reply
  9. অনলাইনে ইনকামের অনেকগুলো মাধ্যমের মধ্যে অন্যতম একটি মাধ্যম হল গুগল এডসেন্স।জনপ্রিয় এই গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে বেশ ভালো টাকা অর্জন করার সুযোগ রয়েছে। গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় শিরোনামের এই আর্টিকেলটিতে যে টিপস্গুলো বর্ণনা করা হয়েছে, এগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে যদি কেউ গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করে, আশা করছি তার আবেদন গুগলের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে। অর্থাৎ উল্লেখিত পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করে এডসেন্সের জন্য আবেদন করলে নিশ্চিতভাবে এডসেন্সের অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে।

    Reply
  10. বর্তমান প্রযুক্তির যুগে মানুষের জীবনযাত্রা অনলাইন নির্ভর হয়ে গিয়েছে। মানুষ এখন দিনের বেশিরভাগ সময় অনলাইনে কাটায়। এই অনলাইনকেই কাজে লাগিয়ে টাকা ইনকাম করা এখন বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।
    অনলাইনে টাকা ইনকামের বিভিন্ন উপায়ের মধ্যে অন্যতম হলো গুগল এডসেন্স।
    আমরা অনেকেই গুগল এডসেন্স এর নাম শুনেছি এবং জানি যে এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা যায়। আমরা যারা ইংরেজিতে দুর্বল তবে বাংলায় ভালোভাবে কনটেন্ট লিখতে পারি তাদের জন্য গুগল এডসেন্স বিশাল এক সুযোগ অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করার। কিন্তু অনেক সময় দেখা যায় যে গুগল থেকে অনেকেই এডসেন্সের জন্য অনুমোদন পায় না। এর বেশ কিছু কারণও রয়েছে।
    এই কনটেন্টটিতে লেখক গুগল এডসেন্স না পাওয়ার কারণ গুলো বর্ণনার পাশাপাশি কিভাবে গুগল এডসেন্স পাওয়া যাবে এবং গুগল এডসেন্স পাওয়ার পরও সাইটে ভিজিটর না আসা বা কমে যাওয়ার কারণ ও এর সমাধান সুন্দর করে উপস্হাপন করেছেন।
    এই আর্টিকেলে বর্ণিত বিষয়গুলো অনুসরণ করে কেও যদি গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করে তাহলে এডসেন্সের জন্য অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে বলে আশা করা যায়।

    Reply
  11. গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য নিবন্ধটিতে সঠিক টিপস অনুসরণ করে আবেদন করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে, যা আবেদন গ্রহণযোগ্য হওয়ার সম্ভাবনা বাড়াবে। যারা আবেদন করতে ইচ্ছুক বা বারবার রিজেক্ট হয়েছে তাদের নিবন্ধটি মনোযোগ সহকারে পড়তে বলা হয়েছে। অনেকে ইতিমধ্যে এডসেন্স থেকে ইনকাম করা শুরু করেছেন বা করার চিন্তা করছেন।

    Reply
  12. অনলাইন থেকে ইনকামের অনেকগুলো মাধ্যমের মধ্যে সবচেয়ে সহজ এবং গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স। কিন্তু এডসেন্স থেকে কিভাবে ইনকাম করা যায় তা অনেকে বুঝতে পারে না। অনেকে গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য বারবার আবেদন করার পরও রিজেক্ট হয়, সেক্ষেত্রে তারা যদি উল্লেখিত আর্টিকেলটিতে যে টিপস গুলো বর্ণনা করা হয়েছে তা সঠিকভাবে অনুসরণ করে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করে তবে গুগল এর কাছে গ্রহণযোগ্য হবে। সুতরাং যারা আগ্রহী তারা মনোযোগ সহকারে আর্টিকেলটি পড়তে পারেন।

    Reply
  13. অনলাইনে ইনকামের অনেক গুলো মাধ্যম রয়েছে।এর মধ্যে অন্যতম মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স।উপরের কন্টেন্টটিতে গুগল এডসেন্ড পাওয়ার জন্য বিভিন্ন ধরনের টিপস আলোচনা করা হয়েছে। টিপস গুলো অনুসরণ করে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করে গুগল এডসেন্স পাওয়া যাবে।

    Reply
  14. গুগল এডসেন্স নিয়ে অনেক গুরুত্ত্বপূর্ণ তথ্য শিখতে পারলাম।লেখককে ধন্যবাদ জানাই এতো চমৎকারভাবে কন্টেন্টটি লেখার জন্য।

    Reply
  15. গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আমরা কম-বেশি সবাই কিছুটা জানি, কিন্তু কিভাবে এর মাধ্যমে আয় করা যায়, তা আমাদের অনেকেরই পরিষ্কার নয়। এই নিবন্ধে যে টিপসগুলো আলোচনা করা হয়েছে, সেগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করলে, কেউ যদি গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করে, তাহলে তার আবেদনটি গুগলের কাছে গৃহীত হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। সুন্দরভাবে এই বিষয়গুলো উপস্থাপন করার জন্য লেখককে ধন্যবাদ।

    Reply
  16. বর্তমান প্রযুক্তির যুগে মানুষের জীবনযাত্রা অনলাইন নির্ভর হয়ে গিয়েছে। মানুষ এখন দিনের বেশিরভাগ সময় অনলাইনে কাটায়। এই অনলাইনকেই কাজে লাগিয়ে টাকা ইনকাম করা এখন বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।অনলাইন থেকে ইনকামের সবচেয়ে সহজ এবং গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স।গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আমরা কম-বেশী অনেকেই শুনে থাকলেও এর থেকে ইনকাম করার উপায় আমরা বুঝি না।অনেকে গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য বারবার আবেদন করার পরও রিজেক্ট হয়, গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য নিবন্ধটিতে সঠিক টিপস অনুসরণ করে আবেদন করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে, যা আবেদন গ্রহণযোগ্য হওয়ার সম্ভাবনা বাড়াবে। এতে কাস্টম ডোমেইন ক্রয়, ভালো মানের কন্টেন্ট তৈরি, এসইও ফ্রেন্ডলী পোস্ট, এবং ওয়েবসাইট ডিজাইন সম্পর্কে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া, গুগল এডসেন্সের নীতিমালা মানার গুরুত্ব, ভিজিটরদের জন্য প্রয়োজনীয় পেজ তৈরি করা, এবং কপিরাইট ইমেজ ব্যবহার না করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। নিয়মগুলো অনুসরণ করলে গুগল এডসেন্স পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বৃদ্ধি পায়।এ কনটেন্টিতে সুন্দর করে ফুটিয়ে তুলেছেন গুরুত্বপূর্ণ কৌশল গুগল এডসেন্স কাজ সহজেই পেতে খুবই প্রয়োজনীয় কনটেন্টি ভালো করে পড়া। ধন্যবাদ লেখক কে এত সুন্দর কনটেন্টই উপস্থাপন করার জন্য।

    Reply
  17. অনলাইনে ইনকামের অনেক গুলো মাধ্যম রয়েছে।এর মধ্যে অন্যতম মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স।এই আর্টিকেলে বর্ণিত বিষয়গুলো অনুসরণ করে কেও যদি গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করে তাহলে এডসেন্সের জন্য অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে বলে আশা করা যায়।গুগল এডসেন্স নিয়ে অনেক গুরুত্ত্বপূর্ণ তথ্য শিখতে পারলাম।লেখককে ধন্যবাদ জানাই এতো চমৎকারভাবে কন্টেন্টটি লেখার জন্য।

    Reply
  18. বর্তমান যুগে আমরা অনেকেই ইউটিউবিং করে বা বিভিন্ন ওয়েবসাইট বা ব্লগ বানিয়ে টাকা আয় করতে চাই কিন্তু আমরা হয়তো অনেকেই জানি না যে এই টাকা কই থেকে আসে। অ্যাডসেন্সই হলো সেই জাদুর চাবিকাঠি যার মাধ্যমে ওয়েবসাইট অথবা ইউটিউব থেকে টাকা আসে গুগল সেটি দিয়ে আপনার আমার ওয়েবসাইট এ ইউটিউব ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেয় এবং তার বিনিময়ে আমাদের টাকা দিয়ে থাকে এবং তারা নিজেরাও টাকা আয় করে থাকে। উক্ত আর্টিকেলটি পড়ে আমরা আরো বিস্তারিতভাবে গুগলের অ্যাডসেন্স সম্পর্কে জানতে পারবো। লেখককে ধন্যবাদ জানাই উক্ত বিষয়টি আমাদেরকে জানান দেওয়া জন্য।

    Reply
  19. অনলাইন থেকে ইনকামের অনেকগুলো মাধ্যম রয়েছে। এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে সহজ এবং গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স। এই আর্টিকেলটিতে যে পদ্ধতিগুলো উল্লেখ করা হয়েছে, যদি কেউ পদ্ধতিগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে এডসেন্সের জন্য আবেদন করে নিশ্চিতভাবে এডসেন্সের অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে ইনশাআল্লাহ।

    Reply
  20. গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে ইনকাম করার উপায় এই কন্টেন্টে আলোচনা করা হয়েছে। আমরা যারা অনলাইন থেকে আয় করতে চাই তাদের জন্য খুব উপকারি একটি কন্টেন্ট।

    Reply
  21. বর্তমান সময়ে বেশির ভাগ মানুষই কষ্টকর কম হবে কিংবা ঘরে বসে করা যাবে এমন কিছু কাজ করতে চায়। কিন্ত দেশের মানুষ অধিকাংশই ইংরেজিতে দূর্বল। যে কারণে আমরা অনেক পিছিয়ে রয়েছি। বিশেষ করে অনলাইন থেকে ইনকাম করার ক্ষেত্রে আমরা অনেক পিছিয়ে রয়েছি।দুশ্চিন্তা করার কিছু নাই। ইংরেজি ভাষায় লিখতে পারি না তো কি হয়েছে, বাংলা ভাষায় তো লিখতে পারি! আমাদের দেশে অনলাইন থেকে যারা ইনকাম করতে চায়, তাদের জন্য একটি সু-খবর হলো- গুগল বেশ কয়েক বছর ধরে বাংলা ভাষাভাষিদের জন্য ইনকাম করার বিশাল সুযোগ করে দিয়েছে। অর্থাৎ আপনি যদি বাংলা ভাষায় ভালো লেখালেখি করতে পারেন তাহলে ব্লগসাইটে কন্টেন্ট লিখে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন।Google AdSense হলো অনলাইন ভিত্তিক বিজ্ঞাপন প্রচারের সবচেয়ে বড় সংস্থা।গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় শিরোনামের এই আর্টিকেলটিতে যে টিপস্গুলো বর্ণনা করা হয়েছে, এগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে যদি কেউ গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করে, আশা করছি তার আবেদন গুগলের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে। ধন্যবাদ লেখক কে এতো সুন্দর ভাবে একটি কন্টেন্ট লেখার জন্য।অনেক শিখনিয় বিষয় জানতে পারলাম কনটেন্টটি থেকে যে বিষয় গুলো আগে জানা ছিল না

    Reply
  22. গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আমরা কম-বেশী অনেকেই শুনেছি। শুনেছি এর মাধ্যমে নাকি অনেক টাকা ইনকাম করা যায়। কিন্তু কিভাবে করবো বুঝতে পারছি না। এরকম সমস্যা অনেকেরই রয়েছে, যারা এডসেন্স থেকে ইনকাম করা যায় শুনেছেন, কিন্তু করতে পারছেন না। তাদের জন্য এই কনটেন্টটি অনেক হেলফুল হবে, এখানে গুগল এডসেন্স সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে এই সাইটে কিভাবে ইনকাম করা যাই তার নিয়ম-কানুন দেয়া আছে । লেখককে অনেক ধন্যবাদ কনটেন্টটি লেখার জন্য ।

    Reply
  23. গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আমরা কমবেশি জেনে থাকলেও। গুগল এডসেন্স এর কাজ কিভাবে করতে হয় তা আমরা জানি না।
    এই আর্টিকেলটিতে যে পদ্ধতিগুলো উল্লেখ করা হয়েছে, যদি কেউ পদ্ধতিগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে এডসেন্সের জন্য আবেদন করে নিশ্চিতভাবে এডসেন্সের অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে। এ কনটেন্টিতে লেখক খুব সুন্দর করে ফুটিয়ে তুলেছেন গুরুত্বপূর্ণ কৌশল গুগল এডসেন্স কাজ সহজেই পেতে খুবই, প্রয়োজনীয় কনটেন্টি ভালো করে পড়া। ধন্যবাদ লেখক কে এত সুন্দর কনটেন্টই উপস্থাপন করার জন্য।

    Reply
  24. আসসালামু আলাইকুম, বর্তমান প্রযুক্তির উৎকর্ষতার ফলে আমাদের বেশিরভাগ কাজ হয়েছে অনলাইন নির্ভর। আমরা কম বেশি সবাই জানি অনলাইন থেকে মানুষ আয় করে থাকে, কিন্তু এই আয়ের সঠিক নিয়ম, উৎস ও ব্যবহার সম্পর্কে বিস্তারিত আমরা জানিনা। গুগল এডসেন্স সম্পর্কে অনেকেই শুনেছি, কিন্তু এই এই এডসেন্স সম্পর্কে আমরা ক’জন জানি, আমার নিজের ও সুস্পষ্ট ধারণা ছিলোনা। উল্লেখিত কন্টেন্ট এ এডসেন্স সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে আপনারা ও পড়ে উপকৃত হতে পারেন।বিশদভাবে জানতে নিচের দেওয়া লিংকে ক্লিক করুন 👎

    Reply
  25. অনলাইন থেকে ইনকামের অনেকগুলো মাধ্যম রয়েছে। Google AdSense হলো অনলাইন ভিত্তিক বিজ্ঞাপন প্রচারের সবচেয়ে বড় সংস্থা। এর মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করা সম্ভব।উক্ত কন্টেন্টে গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকামের উপায়,গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।উক্ত টিপসগুলো যদি অনুসরণ করা যায় তাহলে গুগল এডসেন্স খুব সহজেই পাওয়া যাবে।

    Reply
  26. গুগল অ্যাডসেন্সে গৃহীত হওয়ার জন্য, আপনার ওয়েবসাইটকে অবশ্যই কিছু মানদণ্ড পূরণ করতে হবে। প্রথমত, আপনার ওয়েবসাইটটি অবশ্যই প্রকাশিত এবং সাধারণ মানুষের কাছে প্রবেশযোগ্য হতে হবে। দ্বিতীয়ত, অ্যাডসেন্সের যোগ্য হওয়ার জন্য আপনার ওয়েবসাইটে অবশ্যই ভাল মানের হায় কোয়ালিটি আর্টিকেল থাকতে হবে।

    Reply
  27. অনলাইনে ইনকামের অনেকগুলো মাধ্যমের মধ্যে অন্যতম একটি মাধ্যম হল গুগল এডসেন্স।উক্ত কন্টেন্টে গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকামের উপায়,গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।উক্ত টিপসগুলো যদি অনুসরণ করা যায় তাহলে গুগল এডসেন্স খুব সহজেই পাওয়া যাবে।

    Reply
  28. অধিকাংশ মানুষ এখন দিনের বেশিরভাগ সময় অনলাইনে কাটায়।বর্তমানে অনলাইনকে কাজে লাগিয়ে টাকা ইনকাম করা বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।
    অনলাইনে টাকা ইনকামের বিভিন্ন উপায়ের মধ্যে অন্যতম হলো গুগল এডসেন্স।
    আমরা অনেকেই গুগল এডসেন্স এর নাম শুনেছি কিন্তু কিভাবে এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা যায় তা জানিনা।এই কনটেন্টটিতে লেখক গুগল এডসেন্স না পাওয়ার কারণ গুলো বর্ণনার করেছেন। কিভাবে গুগল এডসেন্স পাওয়া যাবে এবং গুগল এডসেন্স পাওয়ার পর সাইটে ভিজিটর না আসা বা কমে যাওয়ার কারণ ও এর সমাধান সুন্দর করে উপস্থাপন করেছেন।
    এই আর্টিকেলে বর্ণিত বিষয়গুলো অনুসরণ করে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করলে এডসেন্সের জন্য অনুমোদন পাওয়া যাবে।

    Reply
  29. গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় নিয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেল। এটি অনলাইন ইনকামের সহজ মাধ্যম। টিপসগুলো অনুসরণ করলে আপনার আবেদন গুগলের কাছে গ্রহণযোগ্য হবে। যারা আবেদন করতে চান, তাদের জন্য আর্টিকেলটি পড়া জরুরি।

    Reply
  30. Google AdSense is a free tool website, owners use to place Google Ads on their sites. it is a way to passively earn income from your website. Google has made it easy to use AdSense to make money online but there are some best practices to successfully get Google AdSense. The topic has been well explained in this article, pls go through it if you would like to be successful in the get-rich scheme.

    Reply
  31. গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আমরা কম-বেশী অনেকেই শুনেছি। শুনেছি এর মাধ্যমে নাকি অনেক টাকা ইনকাম করা যায়।লেখক কে ধন্যবাদ জানাই এত সুন্দর করে সহজ ভাষায় গুগলি এডসেন্স দিয়ে অনলাইন এ টাকা আয় করার উপায় বর্ণনা করেছেন ।

    Reply
  32. বর্তমান প্রযুক্তির যুগে মানুষের জীবনযাত্রা অনলাইন নির্ভর হয়ে গিয়েছে। মানুষ এখন দিনের বেশিরভাগ সময় অনলাইনে কাটায়। এই অনলাইনকেই কাজে লাগিয়ে টাকা ইনকাম করা এখন বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আমরা কমবেশি জেনে থাকলেও। গুগল এডসেন্স এর কাজ কিভাবে করতে হয় তা আমরা জানি না।এই কনটেন্টটিতে লেখক গুগল এডসেন্স না পাওয়ার কারণ গুলো বর্ণনার করেছেন। কিভাবে গুগল এডসেন্স পাওয়া যাবে এবং গুগল এডসেন্স পাওয়ার পর সাইটে ভিজিটর না আসা বা কমে যাওয়ার কারণ ও এর সমাধান সুন্দর করে উপস্থাপন করেছেন।লেখক কে ধন্যবাদ জানাই এত সুন্দর করে সহজ ভাষায় গুগলি এডসেন্স দিয়ে অনলাইন এ টাকা আয় করার উপায় বর্ণনা করেছেন ।

    Reply
  33. আমরা সবাই এখন জানি যে অনলাইনে আয় করার অনেক মাধ্যম রয়েছে ।এর ভিতরে একটি গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হচ্ছে গুগল এডসেন্স। কিন্তু আমরা জানি না এটা কিভাবে ব্যবহার করতে হয়। উপরে উল্লেখিত কন্টেন্টে গুগল এডসেন্স নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে এবং বিশেষ কিছু টিপস দেওয়া হয়েছে। যে সকল টিপস ফলো করলে যারা গুগল এডসেন্সে কাজ করতে চায় তাদের আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে। কারণ অনেকেই সঠিকভাবে আবেদন করতে পারে না বলে তাদের আবেদন রিজেক্ট হয়। তাই কনটেন্টে গুগল এডসেন্স আবেদনকারীদের জন্য বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ একটি আর্টিকেল।

    Reply
  34. আসসালামু আলাইকুম লেখক কে ধন্যবাদ জানাই এত সুন্দর করে সহজ ভাষায় গুগল এডসেন্স নিয়ে লেখার জন্য। আশা করি সবাই কনটেন্টটা পড়ে উপকৃত হবেন ইনশাআল্লাহ।

    Reply

    Reply
  35. Google Adsense is one of the ways to earn from home from online platform. But many of us lose interest in work because we don’t know how to earn money from Google Adsense, how to use it or what methods we can use to succeed.In addition to discussing these issues, the content also highlights the solutions.

    Reply
  36. অনলাইন থেকে ইনকাম করার অনেক মাধ্যম থাকলেও গুগল এডসেন্স তুলনামূলক অনেকটা নির্ভরযোগ্য। গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করার সঠিক নিয়ম গুলো জানা থাকলে সহজেই টাকা ইনকাম করা যায়। কিন্তু অনেকেই এই নিয়মগুলো জানে না বলে অনেক বিরম্বনায় পরতে হয়। লেখক আর্টিকেলটিতে অনেক সুন্দর ভাবে সবগুলো বিষয় তুলে ধরেছেন।

    Reply
  37. গুগল এডসেন্স এর নীতিমালা জানা না থাকার কারণে অনেকেই অ্যাডসেন্সের আবেদন করে রিজেক্ট হন। তাই আবেদনের পূর্বে উক্ত টিপস গুলো অনুসরণ করলে গুগল এডসেন্স পাওয়া সহজ ।যার মাধ্যমে আশা করা যায়, অনলাইনে ইনকামের পথ সুগম হবে ইংশাআল্লাহ।

    Reply
  38. আমরা অনেকেই ঘরে বসে অনলাইন এর মাধ্যমে ইনকাম করতে চাই ।এর মধ্যে সহজ কিছু সাইট হয়েছে যেমন গুগল এডসেন্স। অনেকেই গুগল এডসেন্সের নিয়ম নীতি না জানার কারণে আবেদন করার পর রিজেক্ট করা হয়। আমরা আর্টিকেলটির পরে তার নীতিমালা অনুযায়ী সঠিকভাবে আবেদন করলে আশা করা যায় আমরা সফল হব।

    Reply
  39. গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে ইনকাম করার উপায় এই কন্টেন্টে আলোচনা করা হয়েছে। আমরা যারা অনলাইন থেকে আয় করতে চাই তাদের জন্য খুব উপকারি একটি কন্টেন্ট।

    Reply
  40. আমার মতো যারা গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে ইনকাম করতে চাই তাদের জন্য খুব উপকারি একটি কন্টেন্ট। অনলাইনে টাকা ইনকামের বিভিন্ন উপায়ের মধ্যে অন্যতম হলো গুগল এডসেন্স।
    আমরা অনেকেই গুগল এডসেন্স এর নাম শুনেছি কিন্তু কিভাবে এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা যায় তা জানিনা।এই কনটেন্টটিতে লেখক গুগল এডসেন্স না পাওয়ার কারণ গুলো বর্ণনা করেছেন। কিভাবে গুগল এডসেন্স পাওয়া যাবে এবং গুগল এডসেন্স পাওয়ার পর সাইটে ভিজিটর না আসা বা কমে যাওয়ার কারণ ও এর সমাধান সুন্দর করে উপস্থাপন করেছেন। আমরা আর্টিকেলটির পরে তার নীতিমালা অনুযায়ী সঠিকভাবে আবেদন করলে আশা করা যায় আমরা সফল হব। লেখক কে ধন্যবাদ জানাই এত সুন্দর করে সহজ ভাষায় গুগল এডসেন্স নিয়ে লেখার জন্য।

    Reply
  41. অনলাইন থেকে ইনকামের অনেকগুলো মাধ্যম রয়েছে আমরা জানি । যার মধ্যে সবচেয়ে সহজ এবং গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স।উক্ত কন্টেন্টে গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকামের উপায়,গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।আমরা যারা অনলাইন থেকে আয় করতে চাই তাদের জন্য খুবই উপকারী একটি কনটেন্ট । লেখককে অনেক ধন্যবাদ এত সুন্দর কনটেন্ট উপস্থাপন করার জন্য।

    Reply
  42. আমরা কম বেশি সবাই চাই ঘরে বসে যদি ইনকাম করা যায়। ঘরে বসে ইনকামের যতগুলো মাধ্যম রয়েছে তাদের মধ্যে গুগল এডসেন্স খুব ই জনপ্রিয়। গুগল এডসেন্স এর কথা সবাই শুনেছি, কিন্তু কিভাবে ইনকাম হয় আদৌও কি হয় কি না তা সম্পর্কে তেমন কোন ধারনা নেই। তাই উপরের আর্টিকেল টি ভালো ভাবে পড়লে গুগল এডসেন্স সম্পর্কে খুব ভালো ভাবে জানা যায়। আশা করি সবাই পড়ে উপকৃত হবে।

    Reply
  43. অনলাইন থেকে ইনকামের অনেকগুলো মাধ্যম রয়েছে আমরা জানি এর মধ্যে অন্যতম উপায় হলো google এডসেন্স। আমার মত যারা এই এডসেন্সের মাধ্যমে ইনকাম করতে চায় তাদের জন্য খুবই উপকারী এ কনটেন্ট টি। আমরা এই আর্টিকেলটি পড়ে নীতিমালা নিয়ম অনুযায়ী আবেদন করলে আমরা অবশ্যই সফল হব ইনশাআল্লাহ। ধন্যবাদ লেখক

    Reply
  44. অনলাইনে টাকা ইনকামের বিভিন্ন উপায়ের মধ্যে অন্যতম হলো গুগল এডসেন্স।
    আমরা অনেকেই গুগল এডসেন্স এর নাম শুনেছি কিন্তু কিভাবে এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা যায় তা জানিনা।এই কনটেন্টটিতে লেখক গুগল এডসেন্স না পাওয়ার কারণ গুলো বর্ণনা করেছেন।তাই আমাদের সবার উচিত সঠিক ভাবে কন্টেন্টটি নিয়ম অনুযায়ী কাজ করা।তাহলে অবশ্যই সফল হবো ইনশাআল্লাহ।

    Reply
  45. বর্তমানে সবাই চাই অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে। কিন্তু কিভাবে করবে সেটা জানা নেই। উক্ত কন্টেন্ট এ অনলাইন থেকে টাকা ইনকামের একটা সহজ উপায়ের কথা বলেছেন লেখক তা হল গুগল এডসেন্স। গুগলে আবেদন গ্রহনযোগ্য হবার জন্য লেখক কিছু টিপ্স অনুসরণ করতে বলেছেন। এই টিপ্সগুলো অনুসরণ করে গুগুলে আবেদন করলে খুব সহজেই গুগুল এডসেন্স এর মাধ্যমে যে কেউ টাকা ইনকাম করতে পারবে।উক্ত আর্টিকেলটি পড়ে আমিও এই বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পরছি।আশা করি আপনারা ও আর্টিকেলটি পড়ে উপকৃত হবেন।ধন্যবাদ লেখককে বিষয়টি সুন্দরভাবে উপস্থাপন করার জন্য।

    Reply
  46. বর্তমান প্রযুক্তির উৎকর্ষতার ফলে আমাদের বেশিরভাগ কাজ হয়েছে অনলাইন নির্ভর। আমরা কম বেশি সবাই জানি অনলাইন থেকে মানুষ আয় করে থাকে, কিন্তু এই আয়ের সঠিক নিয়ম, উৎস ও ব্যবহার সম্পর্কে বিস্তারিত আমরা জানিনা। অনলাইন থেকে ইনকামের সবচেয়ে সহজ এবং গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স।গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আমরা কম-বেশী অনেকেই শুনে থাকলেও এর থেকে ইনকাম করার উপায় আমরা বুঝি না।অনেকে গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য বারবার আবেদন করার পরও রিজেক্ট হয়, গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় শিরোনামের এই আর্টিকেলটিতে যে টিপস্গুলো বর্ণনা করা হয়েছে, এগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে যদি কেউ গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করে, আশা করছি তার আবেদন গুগলের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে। ধন্যবাদ লেখক কে এতো সুন্দর ভাবে একটি কন্টেন্ট উপস্থাপন করার জন্য।

    Reply
  47. অনলাইন থেকে ইনকামের সবচেয়ে সহজ এবং গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স।কিন্তু কিভাবে করা যায় অনেকেই বুঝতে পারেনা।এই কনটেন্টটিতে লেখক গুগল এডসেন্স না পাওয়ার কারণ গুলো বর্ণনার পাশাপাশি কিভাবে গুগল এডসেন্স পাওয়া যাবে এবং গুগল এডসেন্স পাওয়ার পরও সাইটে ভিজিটর না আসা বা কমে যাওয়ার কারণ ও এর সমাধান সুন্দর করে উপস্থাপন করেছেন।বর্ণিত বিষয়গুলো অনুসরণ করে কেউঁ যদি গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করে তাহলে এডসেন্সের জন্য অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে বলে আশা করা যায়।

    Reply
  48. বর্তমান যুগ তথ্য প্রযুক্তির যুগ। অনলাইনের এই যুগে গুগল এডসেন্স খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে এখন ঘরে বসে ইনকাম করা যাচ্ছে। কিন্তু কিছু গুরুত্বপূর্ণ নিয়মকানুন না জানার কারনে অনেকেই এই সাইটটিতে অসফল হচ্ছে।নিম্নোক্ত কন্টেন্টটিতে গুগল এডসেন্সে কিভাবে ভালো করা যায় সেই সকল উপায় খুব সুন্দরভাবে বর্ননা করা হয়েছে।

    Reply
  49. অনলাইন থেকে ইনকামের অনেকগুলো মাধ্যম রয়েছে। যার মধ্যে সবচেয়ে সহজ এবং গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স।উক্ত কন্টেন্টে গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকামের উপায়,গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।উক্ত টিপসগুলো যদি অনুসরণ করা যায় তাহলে গুগল এডসেন্স খুব সহজেই পাওয়া যাবে। লেখক কে ধন্যবাদ জানাই এত সুন্দর করে সহজ ভাষায় গুগলি এডসেন্স দিয়ে অনলাইন এ টাকা আয় করার উপায় বর্ণনা করেছেন ।

    Reply
  50. অনলাইনে থেকে ইনকাম এখন খুবই জনপ্রিয় একটি বিষয়। অনলাইনে থেকে ইনকাম এখন খুবই জনপ্রিয় একটি বিষয়। অনলাইনে টাকা ইনকামের বিভিন্ন উপায়ের মধ্যে অন্যতম হলো গুগল এডসেন্স।
    আমরা অনেকেই গুগল এডসেন্স এর নাম শুনেছি কিন্তু কিভাবে এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা যায় তা জানিনা। গুগলে আবেদন গ্রহনযোগ্য হবার জন্য লেখক কিছু টিপ্স অনুসরণ করতে বলেছেন। এই টিপ্সগুলো অনুসরণ করে গুগুলে আবেদন করলে খুব সহজেই গুগুল এডসেন্স এর মাধ্যমে যে কেউ টাকা ইনকাম করতে পারবে।লেখককে অনেক ধন্যবাদ এত সুন্দর কনটেন্ট উপস্থাপন করার জন্য।

    Reply
  51. বর্তমানে অনলাইন থেকে ইনকাম করার মাধ্যম গুলোর মধ্যে গুগল এডসেন্স দিন দিন খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। অনেকে হয়তো এই প্লাটফর্মটি থেকে ইনকাম করছে আবার অনেকে হয়তো শত চেষ্টা করেও পারছে না। আজকের এই আর্টিকেলটি তাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।কনটেন্টটিতে খুবই সহজ ও সাবলীল ভাষায় গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করার সকল প্রসেস গুলো লেখক সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করেছেন। যারা সত্যিকার অর্থে গুগল এডসেন্সের দ্বারা ইনকাম করে স্বাবলম্বী হতে চায় তারা এই আর্টিকেলে উল্লেখিত কৌশল গুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করলে সফল হবেই ইনশাল্লাহ।

    Reply
  52. গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে ইনকাম করার উপায় এই কন্টেন্টে খুব সুন্দর করে আলোচনা করা হয়েছে।এই কন্টেন্টটিতে যে পদ্ধতিগুলো উল্লেখ করা হয়েছে, তা যদি কেউ সঠিকভাবে অনুসরণ করে এডসেন্সের জন্য আবেদন করে, তাহলে নিশ্চিতভাবে এডসেন্সের অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে, ইনশাআল্লাহ।

    Reply
  53. গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় শিরোনামের এই আর্টিকেলটিতে যে টিপস্গুলো বর্ণনা করা হয়েছে, এগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে যদি কেউ গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করে, আশা করছি তার আবেদন গুগলের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে। অর্থাৎ উল্লেখিত পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করে এডসেন্সের জন্য আবেদন করলে নিশ্চিতভাবে এডসেন্সের অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে।

    Reply
  54. বর্তমানে অনলাইন ইনকামের জন্য গুগল এডসেন্স একটি জনপ্রিয় মাধ্যম।অনেকেই এই মাধ্যমটি থেকে ইনকাম করতে চায় কিন্তু কিছু দক্ষতা ও কৌশল না জানার কারণে ব্যর্থ হয়। আজকের এই কনটেন্টটি তাদের জন্য খুবই উপকারী। কনটেন্টটিতে লেখক খুবই সহজ সাবলীল ভাষায় গুগল অ্যাডসেন্স থেকে ইনকাম করার প্রসেসগুলো সুন্দরভাবে উল্লেখ করেছেন।যারা সত্যিকার অর্থে গুগল এডসেন্স থেকে থেকে ইনকাম করে স্বাবলম্বী হতে চায় তারা এই কনটেন্টে উল্লেখিত কৌশল গুলো সঠিকভাবে প্রয়োগ করলে অবশ্যই সফল হবে ইনশাল্লাহ ।

    Reply
  55. আমরা জানি অনলাইন থেকে নিজের স্কিল কাজে লাগিয়ে খুব সহজেই ডলার ইনকাম করা যায়। কিন্তু কোন কোন উপায়ে তা সম্ভব সেটা খুব কম মানুষই জানি। আর এক্ষেত্রে সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে গুগল এডসেন্স। কিন্তু আমরা অনেকেই আছি যাদের গুগল এডসেন্স সম্পর্কে ধারণা নেই। কিভাবে কি করতে হয় আমরা তা জানি না। তাই জানার জন্য বুঝার জন্য গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আমাদের এই আর্টিকেলটি অনেকটাই সহায়তা করবে। লেখক এই আর্টিকেলটিতে গুগল এডসেন্স সম্পর্কে প্রত্যেকটি পয়েন্ট খুব সুন্দর করে তুলে ধরেছেন। ডলার ইনকাম করার জন্য এই আর্টিকেলটি অনুসরণ করলে আমাদের জন্য উপকার হবে। আমরা সহজেই অনলাইনে ইনকাম করার জগতে প্রবেশ করতে পারবো। এই সুন্দর আর্টিকেলটির জন্য লেখককে ধন্যবাদ।

    Reply
  56. বর্তমানে অনলাইন ইনকামের জন্য গুগল এডসেন্স একটি জনপ্রিয় মাধ্যম।অনেকেই এই মাধ্যমটি থেকে ইনকাম করতে চায় কিন্তু কিছু দক্ষতা ও কৌশল না জানার কারণে ব্যর্থ হয়। আজকের এই কনটেন্টটি তাদের জন্য খুবই উপকারী

    Reply
  57. ‘গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়’ অনলাইনকে কাজে লাগিয়ে টাকা ইনকাম করা এখন দেশে জনপ্রিয়তা লাভ করেছে, অনলাইনে টাকা ইনকামের উপায় এর মধ্যে অন্যতম হলো গুগল এডসেন্স, এডসেন্স থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করবে তা অনেকেই জানে না বা বোঝেনা, অনেকে গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য বারবার আবেদন করার পরও রিজেক্ট হয়, গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য সঠিক নিয়ম ও টিপস অনুসরণ করে আবেদন করলে গ্রহণযোগ্য হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়, এই আর্টিকেলে বর্ণীত বিষয় গুলো অনুসরণ করে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করলে অনুমোদন পাওয়া যাবে বলে আশা করি| ধন্যবাদ এমন গুরুত্বপূর্ণ টপিক এমন বিস্তারিতভাবে আলোচনা করার জন্য, এতে নতুনদের জন্য পথচলা অনেকটা সহজ হবে|

    Reply
  58. অনলাইন থেকে আয় করার জন্য সব চেয়ে সহজ ও গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স । আমরা হয়তো সকলে এডসেন্স এর আবেদন এর সঠিক ভাবে জানিনা তাই অনেক সময় গুগল আমাদের আবেদন গ্রহণ করে না, নিম্নোক্ত আর্টিকেল টি ভালোভাবে পড়লে গুগল এডসেন্স এর বিস্তারিত জানতে পারবে সবাই , কেন গুগল আমাদের আবেদন গ্রহণ করে না বা সঠিকভাবে আবেদন এর উপায় জানা যাবে। যা অনলাইন থেকে আয়ের একটি সুবর্ণ সুযোগ বলা যায়।

    Reply
  59. বর্তমান যুগে প্রযুক্তিগত ভাবে কোন না কোন মাধ্যম দিয়ে ইনকাম করে থাকে।তার মধ্যে গুগল এডসেন্স একটা মাধ্যম। এই মাধ্যম আবেদন করে চালু করতে হয় ।তবে নিয়ম অনুযায়ী আবেদন করলে ,আবেদন রিজেক্ট হয়না ।অনিয়ম ভাবে আবেদন করলে রিজেক্ট হয়ে যায়।গুগল এডসেন্স কত গুলো টিপস আছে ।টিপস অনুসারে চললে সঠিক ভাবে ইনকাম করা যায় । আসলে আমি এই গুগল এডসেন্স থেকে অবগত ।এ সম্পর্কে আমার আগের কোন ধারনা ছিল না ।তাই কন্টেন্ট পেয়ে আমি খুবই উপকৃত হলাম।এই আর্টিকেলঁটি দেওয়ার জন্য লেখক কে অনেক ধন্যবাদ।

    Reply
  60. অত্যন্ত সময়োপযোগী একটি আর্টিকেল।
    কিভাবে সহজে অনলাইন হতে আয় করা যায় তার একটি অন্যতম সহজ মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স।
    এটি পাওয়ার কিছু উপায় আছে যা এই আর্টিকেলটিতে সুন্দর ও সাবলীলভাবে বর্ণনা করা হয়েছে, এগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে যদি কেউ গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করে, আশা করা যায় তার আবেদন গুগলের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে। অর্থাৎ উল্লেখিত পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করে এডসেন্সের জন্য আবেদন করলে নিশ্চিতভাবে এডসেন্সের অনুমোদন পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে।
    তাই গুগল এডসেন্স আবেদনকারীদের জন্য আর্টিকেলটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

    Reply
  61. অনলাইন থেকে ইনকামের অনেকগুলো মাধ্যমের মধ্যে সবচেয়ে সহজ হলো গুগল এডসেন্স। কিন্তু এডসেন্স থেকে কিভাবে ইনকাম করা যায় তা অনেকে বুঝতে পারে না। উল্লিখিত কন্টেন্টটিতে যে টিপস গুলো বর্ণনা করা হয়েছে তা সঠিকভাবে অনুসরণ করে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করলে গুগল এর কাছে তা গ্রহণযোগ্য হবে। কন্টেন্টটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ ও তথ্য বহুল।

    Reply
  62. আমরা সবাই “অনলাইন থেকে ইনকামের” শিরোনামে কোন কিছু সার্চ করি তখন অনেক কিছু দেখতে পাই, কিন্তু খুব সহজেই ইনকাম করতে পারি না। তবে অনলাইন থেকে ইনকামের সবচেয়ে সহজ এবং গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো গুগল এডসেন্স। যা এই আর্টিকেলটিতে খুব সুন্দর করে বুঝানো হয়েছে। সবার জন্য ইনকামের দরজা খুলে গেল।

    Reply
  63. বর্তমান সময়ে বেশির ভাগ মানুষই কষ্ট কম হবে কিংবা ঘরে বসে করা যাবে এমন কিছু কাজ করতে চায়।ঘরে বসে ইনকামের অনেকগুলো মাধ্যমের মধ্যে অন্যতম হল গুগল এডসেন্স।কিন্তু আমাদের দেশে অধিকাংশই ইংরেজিতে দূর্বল, যে কারণে অনলাইন থেকে ইনকাম করার ক্ষেত্রে আমরা অনেক পিছিয়ে রয়েছি।গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়গুলো এই আর্টিকেলটিতে যেভাবে বর্ণনা করা হয়েছে, এগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে যদি কেউ গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করে, আশা করছি তার আবেদন গুগলের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে।

    Reply
  64. প্রযুক্তির এই যুগে এখন মানুষ বিভিন্ন উপায়ে অনলাইনে কাজ করে আয় করছে।তার মধ্যে গুগল এডসেন্স একটি আয়ের মাধ্যম যেটার অনেক জনপ্রিয়তা রয়েছে কিন্তু অনেকেই এই মাধ্যম সম্পর্কে সঠিক জ্ঞান না থাকায় গুগল এডসেন্সের আবেদন সঠিক ভাবে করে না যার জন্য গুগল আবেদন রিজেক্ট করে দেয়।এই আর্টিকেলে গুগল এডসেন্সের আবেদন গুগল সহজে কিভাবে গ্রহণ করবে তারই সঠিক গাইড লাইন দেওয়া হয়েছে। এগুলো যদি আমরা যথাযথ ভাবে ফলো করি তাহলে গুগল এডসেন্সের আবেদন সহজে এক্সেপ্ট করবে বলে আশা করা যায়। এই সুন্দর কন্টেন্টি উপহার দেওয়ার জন্য লেখককে অসংখ্য ধন্যবাদ।

    Reply
  65. তথ্যপ্রযুক্তির এই যুগে, google এডসেন্সের কোন বিকল্প নেই অনলাইন থেকে আয় করার জন্য। আমার মত যারা google এডসেন্স এর মাধ্যমে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চান তারা এই কনটেন্টটি তাদের টাইমলাইনে রেখে দিতে পারে। মাশাল্লাহ এই কনটেন্টিতে গুগল এডসেন্স সম্পর্কে কোথা থেকে কি করবেন সব বিষয় নিয়ে অত্যন্ত নিখুঁতভাবে আলোচনা করা হয়েছে। আশা করি, আমার মত আপনারাও এই কনটেন্টি পড়ে উপকৃত হবেন ইনশাআল্লাহ ।

    Reply
  66. “”বর্তমান তথ্যপ্রযুক্তির”” এই যুগে, google এডসেন্সের কোন বিকল্প নেই অনলাইন থেকে আয় করার জন্য। আমার মত যারা google এডসেন্স এর মাধ্যমে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চান তারা এই কনটেন্টটি তাদের টাইমলাইনে রেখে দিতে পারে। মাশাল্লাহ এই কনটেন্টিতে গুগল এডসেন্স সম্পর্কে কোথা থেকে কি করবেন সব বিষয় নিয়ে অত্যন্ত নিখুঁতভাবে আলোচনা করা হয়েছে। আশা করি, আমার মত আপনারাও এই কনটেন্টি পড়ে উপকৃত হবেন ইনশাআল্লাহ ।

    Reply
  67. Google AdSense হলো অনলাইন ভিত্তিক বিজ্ঞাপন প্রচারের সবচেয়ে বড় সংস্থা। এর মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করা সম্ভব। নতুনদের অনেকেই গুগল এডসেন্সের নীতিমালা সম্পর্কে অবগত নন। নিয়ম-কানুন না জেনেই তারা আবেদন করে থাকেন। যে কারণে অধিকাংশ ব্লগারের গুগল এডসেন্সের আবেদন রিজেক্ট হয়ে যায়। অনেকেই বার বার চেষ্টা করেও সফল হতে পারেন না। গুগল প্রতিবারই রিজেক্ট করে দেয়।
    উক্ত কন্টেন্ট এ -গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়, গুগল এডসেন্স এর নিয়ম,
    এডসেন্স এর জন্য আবেদন করার পূর্বে করণীয়, বর্জনীয় বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করা হয়েছে যা কন্টেন্ট লেখক আমাদের অনলাইন থেকে আয়ের পথকে সহজ করে দিয়েছেন বলে আমি মনে করি।

    Reply
  68. ধন্যবাদ,, কন্টেন্ট রাইটার কে এরকম সুন্দর একটি কনটেন্ট আমাদের মাঝে উপস্থাপন করার জন্য।অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করার মাধ্যম গুলোর মধ্যে সবচেয়ে অন্যতম একটি সহজ মাধ্যম হচ্ছে গুগল এডসেন্স। কিন্তু এখান থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য অনেকগুলো নিয়ম অনুসরণ করতে হয়। যেমন ,প্রথমে গুগল এডসেন্সের নিয়ম ও গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় সম্পর্কে ভালোভাবে ধারণা নিতে হবে। তারপর এডসেন্সের জন্য আবেদন করার পূর্বে কি কি করণীয় সে সম্পর্কে ভালোভাবে ধারণা নেয়া দরকার। যেমন ,কাস্টম ডোমেইন ক্রয়, ব্লক সাইট বা ওয়েবসাইট ডিজাইন, ফাস্ট নিট এন্ড ক্লিন ওয়েবসাইট, ব্লক সাইটে ভালো মানের কনটেন্ট বা আর্টিকেল লেখা ইত্যাদি। এই নিয়মগুলো অনুসরণ করলে ও এই সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে পারলে আমরা খুব সহজে গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করতে পারব।

    Reply
  69. অনলাইনে ইনকামের মাধ্যমগুলোর মধ্যে সবচেয়ে সহজ হলো গুগল এডসেন্স। এই আর্টিকেলটিতে গুগল এডসেন্স পাওয়ার কিছু টিপস বলা হয়েছে। এগুলি অনুসরন করে আবেদন করলে তা এ্যাপ্রুভ হওয়ার সম্ভাবনা বহুগুনে বেড়ে যায়। কন্টেন্টটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ ও তথ্য বহুল।

    Reply
  70. গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করার পর না পেলে অনেকেই হতাশ হয়ে যায়। এটা একটি সহজ কাজ নয়, যেটা প্রতিষ্ঠানের নিয়মনীতি অনুযায়ী চলতে থাকে। এডসেন্স পাওয়ার প্রথম পদক্ষেপ হলো একটি ভালো ওয়েবসাইট তৈরি করা। এই ওয়েবসাইটে যদি আপনার লেখা মানসম্পন্ন এবং প্রতিবেদনগত তথ্যমূলক হয়, তবে আপনি আশা করতে পারেন যে গুগল এডসেন্সের অনুমোদন পাবেন।

    অনুমোদন পাওয়ার ক্ষেত্রে একটি কাজ আরও গুরুত্বপূর্ণ হলো ভালো প্রতিবেদন তৈরি করা। কোন বিষয়ে প্রতিবেদন তৈরির সময় যদি সঠিক তথ্য এবং বিশদ ব্যবহার করা হয়, তাহলে পাঠকরা আপনার ওয়েবসাইটে আসবে এবং আপনার মাধ্যমে প্রকাশিত বিষয়গুলোর মাধ্যমে আউটকাম সম্পর্কে জানতে চাইবে।

    এডসেন্স অনুমোদন পেতে একটি অনুপ্রেরণা হলো নিয়মিতভাবে ওয়েবসাইট সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন করা। এটি অন্যান্য সামাজিক মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইটের বিস্তার বৃদ্ধির জন্য সাহায্য করবে।

    এডসেন্স অনুমোদন পেতে অন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ উপায় হলো সঠিক বিজ্ঞাপন স্থাপন করা

    Reply
  71. মাশাআল্লাহ ,খুবই অসাধারণ একটি কন্টেন্ট। ধন্যবাদ লেখক কে, এরকম সুন্দর একটি কনটেন্ট আমাদের মাঝে প্রদান করার জন্য। বর্তমান সময়ের শিক্ষার্থীদের জন্য অবসর সময় টাকা ইনকাম করার খুবই প্রয়োজনীয় হয়ে ওঠে। অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করার মধ্যে সবচেয়ে ভালো একটি ইনকাম সোর্স হচ্ছে গুগল এডসেন্স। এই কনটেন্ট এ কাস্টম ডোমেইন ক্রয়, ব্লক সাইট বা ওয়েবসাইট ডিজাইন, ফার্স্ট ,নিট এন্ড ক্লিন ওয়েবসাইট, ব্লক সাইটে ভালো মানের কনটেন্ট বা আর্টিকেল লেখা, এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট তৈরি করা, পোস্ট গুলোতে পর্যাপ্ত পরিমাণের কনটেন্ট থাকা, ডোমেইনের পরিণত বয়স, অন্য বিজ্ঞাপন না থাকা, গুগলে সার্চ করার মাধ্যমে ডিজিটর আসা, গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পেজ তৈরি করা, কপিরাইট ইমেজ ব্যবহার করা, গুগল এডসেন্স নীতিমালা সম্পর্কে জানা এবং মেনে চলা, অপরাধমূলক বা আইন বিরোধী কনটেন্ট না লেখা , ও সবশেষে আপনার বয়স ১৮ পূর্ণ হতে হবে। এই সকল বিষয় সম্পর্কে সঠিক নির্দেশনা ও সঠিক তথ্য বিস্তারিতভাবে এই কনটেন্ট এ উপস্থাপন করা হয়েছে। খুবই সুন্দর একটি কনটেন্ট। অনলাইনে ইনকাম করার জন্য এই কনটেন্ট টি আমাদের দৈনন্দিন জীবনে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

    Reply
  72. অনলাইনে বিভিন্নভাবে ইনকাম করা সম্ভব। এর মধ্যে একটি হলো গুগল অ্যাডসেন্স। গুগল অ্যাডসেন্সের মাধ্যমে বর্তমানে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করা সম্ভব। অনেকেই ওয়েবসাইট বানিয়ে বিভিন্ন কন্টেন্ট লিখে গুগল অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন করেছেন কিন্তু বারবার রিজেক্ট হয়েছেন। আবার অনেকেই আছেন নতুন, গুগল অ্যাডসেন্স সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চাচ্ছেন। তাদের কথা বিবেচনা করে এই আর্টিকেল টি লেখা হয়েছে। যাতে খুব সহজেই আপনি গুগল অ্যাডসেন্সের মাধ্যমে আয় করতে পারেন।

    Reply
  73. বর্তমান যুগে আমরা অনেকেই ইউটিউবিং করে বা বিভিন্ন ওয়েবসাইট বা ব্লগ বানিয়ে টাকা আয় করতে চাই কিন্তু আমরা হয়তো অনেকেই জানি না যে এই টাকা কই থেকে আসে। অ্যাডসেন্সই হলো সেই জাদুর চাবিকাঠি যার মাধ্যমে ওয়েবসাইট অথবা ইউটিউব থেকে টাকা আসে গুগল সেটি দিয়ে আপনার আমার ওয়েবসাইট এ ইউটিউব ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেয় এবং তার বিনিময়ে আমাদের টাকা দিয়ে থাকে এবং তারা নিজেরাও টাকা আয় করে থাকে। অ্যাডসেন্সে কাজ করার জন্য আবেদন করলে অনেক সময়ই বাতিল হয়ে যায়। তাই অ্যাডসেন্স সম্পর্কে সঠিক ধারণা পেতে এবং আবেদন করতে ও কাজ পেতে আগ্রহীগণ এই পোস্টে উল্লেখিত কৌশল মেনে আগালে উপকারী হবেন আশা করা যায়।

    Reply

Leave a Comment